Startup Business Idea

স্টার্টআপ কি?

যখন একটি কোম্পানী বাজারে নতুন এবং মৌলিক কোন সেবা বা পণ্য নিয়ে ব্যবসা শুরু করে তখন তাকে স্টার্টআপ বলা হয়। এক বা একাধিক উদ্যোক্তা মিলে স্টার্টআপ শুরু করতে পারে। স্টার্টআপের মূল উদ্দেশ্য হলো পরিকল্পনা অনুযায়ী ছোট প্রতিষ্ঠানকে আস্তে আস্তে বড় প্রতিষ্ঠানে রুপদান।

স্টার্টআপ কোম্পানীর বৈশিষ্ট্য

স্টার্টআপ যেহেতু নতুন বা ইউনিক কোন আইডিয়া সমন্বয় এজন্য এর কিছু বৈশিষ্ট্য বিদ্যামান, একনজরে বৈশিষ্ট্যগুলো দেখিঃ

  • আইডিয়া হবে ইউনিক অর্থাৎ এ ধরনের কোম্পানীর অস্তিত্ব নেই এমন
  • আইডিয়াটি হবে নতুন অথবা পুরোনো কোন বিষয়ের নতুন সমাধান বা পথ
  • আইডিয়াটি হবে অনেকের কাছে আকর্ষনীয় এবং ক্রিয়েটিভ
  • যারা শুরু করবেন সবার মধ্যে স্টার্টআপের সকল বিষয় পরিস্কার থাকতে হবে।

যেভাবে স্টার্টআপের পরিকল্পনা করবেন

স্টার্টআপের পরিকল্পনা হতে হবে সূদুরপ্রসারী ও ইতিবাচক, সেবামূলক অথবা পণ্যভিত্তিক যাই হোক না কেন কিভাবে পরিকল্পনা করবেন দেখে নিই-

  • স্টার্টআপ মিশনের বিবরণ
  • সেবা বা পণ্যের বিস্তারিত বিবরণ
  • সেবা বা পন্যের সম্ভাব্য বাজার অর্থাৎ টার্গেট কাস্টমার বাছাই
  • কোম্পানী বা সংস্থার খসড়া বিবরণ
  • মোট বিনিয়োগ বা মূলধনের পরিমাণ
  • খরচের বিবরন বা বাজেট প্রণয়ন

বাংলাদেশে স্টার্টআপ

বাংলাদেশে প্রযুক্তিখাতে নতুন ব্যবসা উদ্যোগ বা স্টার্টআপের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। যোগাযোগ খাতের ‘পাঠাও’ এর মতো আরো বেশ কিছু স্টার্টআপ ইতোমধ্যে বাজারে এসেছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করা যায়

ডিজিটাল মার্কেটিং হলো ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার মাধ্যমে পণ্য বা ব্র্যান্ডের প্রচারকে বোঝায়। ইন্টারনেট ভিত্তিক মার্কেটিংকে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং বলে থাকি, ইন্টারনেট ছাড়াও মোবাইল এপ্লিকেশন, এসএমএস, ডিজিটাল টিভি’র মাধ্যমেও ডিজিটাল মার্কেটিং করা হয়।

ডিজিটাল মার্কেটিং করার বিভিন্ন উপায় রয়েছে এরমধ্যে নিন্মলিখিতগুলি অন্যতমঃ

  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEO
  • ইউটউব বা ভিডিও মার্কেটিং
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  • কন্টেন্ট সৃষ্টি করা
  • এসএমএস মার্কেটিং
  • ইন্টারেক্টিভ মার্কেটিং
  • ভাইরাল মার্কেটিং
  • ই-মেইল মার্কেটিং
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং
  • পুনঃলক্ষ্য স্থির এবং পুনঃ মার্কেটিং
  • ডিজিটাল মিডিয়া পরিকল্পনা ও বায়িং
  • ওয়েব এনালিটিক্স

Image result for digital marketing

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEOঃ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন হলো একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজকে সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারীদের সার্চ বা অনুসন্ধান তালিকায় প্রথম দিকে দেখানোর চেষ্টা করা হয়। SEO কোন একক কাজ নয় এটি বিভিন্ন ধরনের কাজের সাথে সম্পৃক্ত একটি পদ্ধতি, বলা যায় সমন্বিত পদ্ধতি।

বর্তমান প্রতিযোগীতাপূর্ণ বাজারে পণ্যের মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এসইও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এসইওর মাধ্যমে আপনার পণ্য বা সেবা গুগল সার্চের সবচেয়ে উপরে নিয়ে (প্রথম পাতায়) আসলে আপনার পণ্যের ভিজিটর বাড়বে এবং ক্রেতাও বাড়বে।

ইউটউব বা ভিডিও মার্কেটিংঃ মিডিয়া জগতের অন্যতম জনপ্রিয় হচ্ছে ইউটিউব। কারন মানুষ সময় নিয়ে নিউজ বা বিজ্ঞাপন পড়তে যতটা সাচ্ছন্দ্য লাভ করে এর চেয়ে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য পায় ভিডিও দেখে। বিনোদনের পাশপাশি মার্কেটিং বা বিজ্ঞাপনের জন্য ইউটিউব এর তুলনা নেই। বর্তমানে বিশ্বে প্রথম কাতারে রয়েঝে গুগলের পর ইউটিউব যার কারণে ইউটিউব মার্কেটিং এর গুরুত্ব অনেক বেশি। আপনি পণ্য বা সেবার বিক্রয় বৃদ্ধির জন্য ইউটিউব মার্কেটিং-কে খুব সহজে বেছে নিতে পারেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংঃ সোশ্যাল মিডিয়া বলতে আমরা ফেসবুক, টুইটার, লিংকডিন এধরনের সাইটগুলোবে বুঝায়। ব্যবসায়িক পণ্যের প্রচারের জন্য সবচাইতে ভাল জায়গা এটি। কমিউনিটি তৈরী করে বা গ্রুপ তৈরী করেও আপনার পণ্য বা সেবার প্রচারের কাজ করতে পারেন। বর্তমানে আমাদের দেশে ফেসবুক ভিত্তিক সোশ্যাল মিডিয়াতে বুস্টের মাধ্যমে এবং লাইভ করে পণ্য বিক্রয়ের ব্যবহার ব্যাপক বাড়ছে। ডিজিটাল মার্কেটিং টুলস হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার খুবই ফলপ্রসু।

কন্টেন্ট সৃষ্টি করাঃ কন্টেন্ট সৃষ্টির মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিনে ভাল অবস্থান তৈরী করা সম্ভব যা ডিজিটাল মার্কেটিং বেশ গুরুত্বপূর্ণ। অনলাইনে কন্টেন্ট, যে কোন পোস্ট কিংবা ফোরাম ডিসকাশনে যাতে আপনার টার্গেটেড কি-ওয়ার্ডের উপস্থিতি থাকে যাতে খুব সহজে আপনার পাঠক আপনাকে খুজে পাবে। বিষয়বস্তু নিমার্নের জন্য গুগলের অ্যালগরিদম ব্যবহার হয়, প্রতিবছরই কিছু পরিবর্তন আনে গুগল। এই পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে কন্টেন্ট ডেভেলপ করলে সাইট র‌্যাংকিং এ ভাল অবস্থানে যায়।

এসএমএস মার্কেটিংঃ মোবাইলের মাধ্যমে মার্কেটিং করা যায় যেমন- এসএমএস মার্কেটিং, এমএমএস মার্কেটিং, ব্লুটুথ মার্কেটিং, শেয়ারইট ইত্যাদি অ্যাপস ব্যবহার করেও মার্কেটিং করা যায়। আমাদের নিজেদের পরিচিত শত শত নাম্বার এবং এছাড়াও বিভিন্ন অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম্বার আমরা সেভ করে রাখি যেসব নাম্বারে পণ্য ও সেবার বিবরন দিয়ে তথ্য প্রদান করা যায়। এছাড়াও বাল্ক এসএমএস এর মাধ্যমে একসাথে লাখো ক্রেতার কাছে পণ্যের তথ্য ও বিজ্ঞাপন পৌছে দেয়া যায়।

 

 

সবচেয়ে কম খরচে ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সের জন্য যোগাযোগ করুনঃ ০১৮১৯৫২০০০৯

প্রতি সপ্তাহে একদিন পূর্ণদিবস এবং আরেকদিন অর্ধদিবস বন্ধ থাকছে ঢাকার দোকানপাট

দেখে নিই বিভিন্ন এলাকার মার্কেট ও দোকানপাট বন্ধের তালিকাঃ

রোববার পুরোদিন  সোমবার অর্ধেক দিন বন্ধ

এলাকা

মার্কেটসমূহ

আগারগাঁও, তালতলা, শেরে বাংলা নগর, শেওড়া পাড়া, কাজী পাড়া, পল্লবী, মিরপুর-১০, মিরপুর-১১, মিরপুর-১২, মিরপুর-১৩, মিরপুর-১৪, ইব্রাহীমপুর, কচুক্ষেত, কাফরুল, মহাখালী, নিউ ডিওএসএইচ, ওল্ড ডিওএসএইচ, কাকলী, তেজগাঁও ওল্ড এয়ারপোর্ট এরিয়া, তেজগাঁ ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল এরিয়া, ক্যান্টনমেন্ট, গুলসান-, , বনানী, মহাখালী কমার্শিয়াল এরিয়া, নাখালপাড়া, মহাখালী ইন্টার সিটি বাস টার্মিনাল এরিয়া।

বিসিএস কম্পিউটার সিটি

পল্লবী সুপার মার্কেট,

মিরপুর বেনারসী পল্লী

শাহ আলী প্লাজা

মিরপুর ১১, ১২ এর মার্কেটসমূহ

কচুক্ষেত

রজনীগন্ধা সুপার মার্কেট

ইব্রাহীমপুর বাজার

ইউএই মৈত্রী কমপ্লেক্স

চেয়ারম্যান বাড়ী মার্কেট

বনানী সুপার মার্কেট

ডিসিসি মার্কেট গুলশান-  

গুলশান পিংক সিটি।

রামপুরা, বনশ্রী, খিলগাঁ, গোড়ান, মালিবাগের একাংশ, বাসাবো, ধলপুর, সায়েদাবাদ, মাদারটেক, মুগদা, কমলাপুরের একাংশ, যাত্রাবাড়ী একাংশ, শনির আখড়া, দনিয়া, রায়েরবাগ, সানারপাড়।

ভিআইপি টাওয়ার

মোল্লা টাওয়ার

আল-আমিন সুপার মার্কেট

রামপুরা সুপার মার্কেট

মালিবাগ সুপার মার্কেট

তালতলা সিটি কর্পোরেশন মার্কেট, কমলাপুর স্টেডিয়াম মার্কেট

গোরান বাজার

আবেদিন টাওয়ার

ঢাকা শপিং সেন্টার

আয়েশা মোশারফ শপিং কমপ্লেক্স

মিতালী অ্যান্ড ফ্রেন্ড সুপার মার্কেট

 

মঙ্গলবার পুরোদিন  বুধবার অর্ধেক দিন বন্ধ

মানিক মিয়া এভিনিউ, রাজাবাজার, মণিপুরিপাড়া, তেজকুনীপাড়া, ফার্মগেট, কাওয়ান বাজার, কাঁঠালবাগান, হাতিরপুল, নীলক্ষেত, কাঁটাবন, এলিফ্যান্ট রোড, শুক্রাবাদ, সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, হাজারীবাগ, জিগাতলা, রায়েরবাজার, পিলখানা, লালমাটিয়া।

সেজান পয়েন্ট

ফার্মভিউ সুপার

বসুন্ধরা সিটি

আর এইচ হোম

মোতালেব প্লাজা

ইস্টার্ন প্লাজা

নিউ মার্কেট

চাঁদনী চক

চন্দ্রিমা মার্কেট

গাউসিয়া

ধানমন্ডি হকার্স

বদরুদ্দোজা মার্কেট

প্রিয়াঙ্গন শপিং সেন্টার

গাউসল আজম মার্কেট

রাইফেলস স্কয়ার

অর্চিড পয়েন্ট

ক্যাপিটাল মার্কেট

ধানমন্ডি প্লাজা

মেট্রো শপিং মল

প্রিন্স প্লাজা

রাপা প্লাজা

আনাম র্যাংগস প্লাজা

কাওয়ান বাজার ডিআইটি মার্কেট

অর্চিড প্লাজা।

বুধবার পুরোদিন  বৃহস্পতিবার অর্ধেক দিন বন্ধ

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, মধ্য  উত্তর বাড্ডা, জগন্নাথপুর, বারিধারা, সাতারকুল, শাহাজাদপুর, নিকুঞ্জ-, , কুড়িল, খিলখেত, উত্তরখান, দক্ষিণখান, জোয়ার সাহারা, আশকোনা, বিমানবন্দর সড়ক উত্তরা থেকে টঙ্গী সেতু।

যমুনা ফিউচার পার্ক

নুরুনবী সুপার মার্কেট

পাবলিক ওয়ার্কস সেন্টার

ইউনিটি প্লাজা

ইউনাইটেড প্লাজা

কুশাল সেন্টার

এবি সুপার মার্কেট,

আমির কমপ্লেক্স

মাসকট প্লাজা।

বৃহস্পতিবার পুরোদিন  শুক্রবার অর্ধেক দিন বন্ধ

মোহাম্মাদপুর, আদাবর, শ্যামলী, গাবতলী, মিরপুর স্টেডিয়াম, চিড়িয়াখানা, টেকনিক্যাল, কল্যাণপুর, আসাদগেট।

মোহাম্মাদপুর টাউন হল মার্কেট

কৃষি মার্কেট

আড়ং

বিআড়টিসি মার্কেট

শ্যামলী হল মার্কেট

মুক্তিযোদ্ধা সুপার মার্কেট

মাজার কর্পোরেট মার্কেট

মুক্ত বাংলা শপিং কমপ্লেক্স

শাহ্ আলী সুপার মার্কেট

মিরপুর স্টেডিয়াম মার্কেট

নিউমার্কেট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, ইস্কাটন, মগবাজার, বেইলি রোড, সিদ্ধেশ্বরী, মালিবাগের একাংশ, শাজাহানপুর, শান্তিনগর, শহীদবাগ, শান্তিবাগ, ফকিরেরপুল, পল্টন, মতিঝিল, টিকাটুলি, আরামবাগ, কাকরাইল, বিজয়নগর, সেগুনবাগিচা, হাইকোর্ট ভবন এলাকা, রমনা শিশু পার্ক

মৌচাক মার্কেট

আনারকলি মার্কেট

আয়েশা শপিং কমপ্লেক্স

কর্নফুলি গার্ডেন সিটি

কনকর্ড টুইং টাওয়ার

ইস্টার্ন প্লাস

সিটি হার্ট

জোনাকি সুপার মার্কেট

গাজী ভবন

পল্টন সুপার মার্কেট

স্টেডিয়াম মার্কেট-, এবং ,

গুলিস্থান কমপ্লেক্

রমনা ভবন

খাদ্দার মার্কেট

পীর ইয়ামেনি মার্কেট

বাইতুল মুকাররম মার্কেট

আজিজ কোওপারেটিভ মার্কেট

সাকুরা মার্কেট।

শুক্রবার পুরোদিন  শনিবার অর্ধেক দিন বন্ধ

নবাবপুর, সদরঘাট, তাঁতীবাজার, লক্ষ্মীবাজার, শাঁখারী বাজার, বাংলাবাজার, পাটুয়াটুলী, ফরাশগঞ্জ, শ্যামবাজার, জুরাইন, করিমউল্লাহবাগ, পোস্তগোলা, শ্যামপুর, মীরহাজীরবাগ, দোলাইপাড়, টিপু সুলতান রোড, ধূপখোলা, গেণ্ডারিয়া, দয়াগঞ্জ, স্বামীবাগ, ধোলাইখাল, জয়কালী মন্দির, যাত্রাবাড়ীর দক্ষিন-পশ্চিম অংশ, ওয়ারী, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ, কোতোয়ালী থানা, বংশাল, চাঙ্খারপুল, গুলিস্থানের দক্ষিন অংশ।

গুলিস্থান হকারস মার্কেট

ফরাশগঞ্জ টিম্বার মার্কেট

আজিমপুর সুপার মার্কেট

শ্যামবাজার পাইকারি দোকান

সামাদ সুপার মার্কেট

রহমানিয়া সুপার মার্কেট

ইদ্রিস সুপার মার্কেট

দয়াগঞ্জ বাজার

ধূপখোলা মাঠ 

প্যাসিভ ইনকাম কি? কিভাবে মার্কেট বাংলাদেশ এর মাধ্যমে প্যাসিভ ইনকাম করবেন?

 

Passive Income প্যাসিভ ইনকাম বা পরোক্ষ আয় হলো বিভিন্ন ধরণের উদ্যোগের মাধ্যমে ন্যূনতম কার্যকলাপের মাধ্যমে অর্জিত অর্থ যার জন্য স্বতন্ত্র দৈনিক প্রচেষ্টা বা ব্যক্তির অংশে রক্ষণাবেক্ষণ প্রয়োজন।

 

চাকুরী, ব্যবসা কিংবা সাংসারিক কাজের পাশাপাশি কিছু সময় দিয়ে বাড়তি আয় হলো প্যাসিভ ইনকাম। কিছু প্যাসিভ ইনকাম বা পরোক্ষ আয়ের উদাহরণ হলোঃ

  • Rent Your Space
  • Start a Blog
  • Buy a Blog
  • Affiliatize a Blog
  • Online Course or Guide
  • Online Tasks
  • Online Rebates
  • Cashback Credit Cards
  • Advertise with Your Car
  • Rent Your Car
  • Rideshare Driving
  • Silent Partner
  • Buy a Business
  • Outsource Your Business 

 

প্যাসিভ ইনকামকে আমরা পার্টটাইম ইনকামও বলে থাকি। এবার দেখব মার্কেট বাংলাদেশ ওয়েবসাইট থেকে কিভাবে প্যাসিভ ইনকাম করতে পারবেন। এখান থেকে কয়েকভাবে আয় করতে পারবেনঃ

১) ডিরেক্টরী লিস্টিং করার মাধ্যমে

২) বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে

৩) নিজস্ব পণ্য বিক্রয়ের মাধ্যমে

৪) লিস্টিং আপগ্রেড করার মাধ্যমে

৫) বিভিন্ন শপিংমল লিস্টিং করার মাধ্যমে

 

১) ডিরেক্টরী লিস্টিং করার মাধ্যমেঃ মার্কেট বাংলাদেশ একটি ডিরেক্টরী ওয়েবসাইট এখানে হাজারও প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আপনিও ডিরেক্টরী লিস্টিং করে আয় করতে পারেন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেসিক লিস্টিং করে আপনি ইনকাম করতে পারেন। বিস্তারিত পাবেন এখানে https://bit.ly/2KjH7IC

২) বিজ্ঞাপনের মাধ্যমেঃ মার্কেট বাংলাদেশে বিজ্ঞাপন সংগ্রহের মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারেন। প্রতিটি বিজ্ঞাপনের ৪০% বিজ্ঞাপন সংগ্রহকারী পাবেন। যেমন ধরুন যে বিজ্ঞাপনটি মাসে ২০০০ টাকা যেখান থেকে প্রতিমাসে পাবেন ৮০০ টাকা করে, এভাবে ৫টি বিজ্ঞাপন থেকে পাবেন ৪০০০ টাকা প্রতিমাসে। যে কাজের জন্য আপনাকে তেমন কোন সময় অপচয় করতে হবে না।

৩) নিজস্ব পণ্য বিক্রয়ের মাধ্যমেঃ আপনার উৎপাদিত কিংবা সংগৃহীত পণ্য বিক্রয় করে আপনি আয় করতে পারেন যেমন আমাদের অনেকেই চাকুরীর পাশাপাশি ফেসবুকে পেজ ওপেন করে পণ্য বিক্রয় করে। আপনি আমদানীকারক থেকে পণ্য এনেও বিক্রয় করতে পারেন।

৪) লিস্টিং গুলো আপগ্রেড করার মাধ্যমেঃ ডিরেক্টরী লিস্টিংগুলো আপগ্রেড করার মাধ্যমে আপনি আয় করতে পারেন। যেমন- ফ্রি থেকে সিলভার, গোল্ড এবং প্রিমিয়াম লিস্টিং করে মাসে ১৫ থেকে ২০ হাজার আয় করা সম্ভব। এজন্য প্রাথমিক পর্যায়ে কিছু বেশি সময় দিয়ে পরবর্তীতে সময় কম দিলেও আপনার ভাল আয় করা সম্ভব।

৫) বিভিন্ন শপিংমল লিস্টিং করার মাধ্যমেঃ মার্কেট বাংলাদেশের সমগ্র বাংলাদেশের সকল শপিং মল, মার্কেটসমূহ লিস্টেড হবে। এ কর্মকান্ডেও আপনি অংশ নিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

এই প্যাসিভ ইনকাম সমগ্র বাংলাদেশের জন্য প্রযোজ্য। শহর, জেলা শহর ও মফস্বলেও আপনি কাজ করতে পারেন। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যেখানে আছে সেখানে মার্কেট বাংলাদেশ কার্য্যক্রম প্রযোজ্য। প্রতিটি আয় মাস শেষে প্রত্যেকের একাউন্টে/বিকাশে ট্রান্সফার করা হবে।

আরো বিস্তারিত জানতে ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজের লেখাগুলো পড়ুন এবং কল করুন- ০১৭৮৯১১০০৪৮ নাম্বারে কথা বলুন।

 

About directory

Market Bangladesh is a dynamic online directory. It help to increase and expands business. One can create firms or shops profile and add images of products & services with the help of our representatives and also create Offer and Events. It will effective and efficient to all classes of people and business.Continue

User Login



Not registered yet?

Join the system.

Create an account